1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:১৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
সালথা উপজেলায় কমিউনিস্ট পার্টির কর্মি সভা অনুষ্ঠিত ফারিয়ার উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত সালথায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত মধুখালীর কোরকদি ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্ব ও কর্তব্য বিষয়ে অবহিতকরণ কর্মশালা বোয়ালমারীতে ইউনিয়ন পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) স্থানীয়করণ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত নিয়ামতপুরে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে নিরাপত্তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা পিতার লাশ বাড়িতে রেখেই অশ্রু জলে বুক ভাসিয়ে পরীক্ষার হলে ছেলে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট চেয়ে কাঁদলেন ভাঙ্গা উপজেলা সিপিপির বর্ধিত সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত বোয়ালমারীতে জনপ্রতিনিধিদের সাথে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি পাল্টানোর নামে চলছে গ্রাহক হয়রানি!

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক

খন্দকার আব্দুল্লাহঃ গত দেড় মাসের মতো ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চতুল বোর্ড অফিস এলাকা ও চতুল ইউনিয়নের চতুল, শুকদেবনগর এবং ধুলপুকুরিয়ায় দেড় মাসের মতো বিদ্যুৎ থাকে না বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, ৮নং পৌরসভার চতুল আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশ দিয়ে প্রায় দেড় মাস যাবৎ আগের খুঁটির থেকে মাত্র এক দেড় ফিট উঁচু করে নতুন বিদ্যুতের খুঁটি স্থাপন করছেন পল্লী বিদ্যুৎ।

এর আগে মাইকিং করে বলেছিল চলতি মাসের ৩ থেকে ৯ তারিখ পর্যন্ত সকাল ৭টা হতে বেলা ১ পর্যন্ত লাইন রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

কিন্তু এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রতিদিন সকাল সাড়ে ছয়টা -সাতটার সময় বিদ্যুৎ যায় আর আসে বেলা ২টা ৩টার দিকে। এই রমজানে প্রতিদিন বিদ্যুৎ না থাকার কারণে অনেকেই রোজা রেখে গরমে ডায়রিয়াসহ নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

তারপর আকাশে একটু মেঘের দৌড়ঝাঁপ দেখলে বিদ্যুতের হাসি দেখে কে! সে যেন ঘোমটা মুড়ি দিয়ে বসে থাকে যে, কে আর পায় আমাকে! এতে টিভি, ফ্রিজ, পানির মটরসহ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ইলেকট্রনিক সামগ্রী।

পৌরসভার চতুল অংশের এনজিও কর্মী মনিরুল ইসলাম বলেন, সকালে বিদ্যুৎ যায় আর আসে প্রায় বিকেলে। তাও আবার রাতে আসা যাওয়া করে কিন্তু এই বিদ্যুতের ভেলকিবাজি দেখার মত কোন নেতাও মনে হয় বোয়ালমারীতে নেই!

ধুলপুকুরিয়ার গনেশ ঠাকুর বলেন, বিদ্যুতের এমন নাজুক পরিস্থিতি যা বলে শেষ করতে পারবনা। তবে আগের ডিজিএম থাকতে বিদ্যুৎ ভালোই থাকত।

চতুলের বিলকিস করিম বলেন, বিদ্যুৎ ঠিকমতো না থাকার কারণে, আমার ফ্রিজের প্রায় ১০ হাজার টাকার জিনিস নষ্ট হয়ে গেছে।

বোয়ালমারী বিদ্যুৎ অফিসের ডিজিএম বলেন, ঠিকাদারকে ডেকে শুনেছি তারা আরোও ৩/৪ দিন লাগবে বলেছে কিন্তু তাদের কথার সাথে মিল না থাকলে কাজ বন্ধ থাকবে। ঈদের পরে আবার কাজ করবে। এ লাইন মেরামত হলে আমরা নিরবচ্ছিন্ন ভাবে বিদ্যুৎ দিতে পারব বলে আশা রাখি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

error: Content is protected !!