1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ১২:৪৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
স্কুল ছাত্রীর লাশ তালাবদ্ধ বাথরুম ভেঙে উদ্ধার আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরে চাঁদাবাজি, আটক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী সালথায় যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ফরিদপুর আঞ্চলিক কেন্দ্রের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন জাতির পিতাকে হত্যার পর তার নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল- লাবু চৌধুরী বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন খাদ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদারের শোক বাণী মেয়ের প্রেম লীলায় মা না ফেরার দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় দম্পতির প্রাণ গেল জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সালথার দলীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় করলেন লাবু চৌধুরী

কানাইপুর বণিক সমিতির নির্বাচন শেষে নির্বাচন কমিশনের সংবাদ সম্মেলন

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: সোমবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুরের কানাইপুর বাজার বণিক সমিতির নির্বাচন না করার জন্য জেলা প্রশাসন কোন লিখিত নির্দেশনা দেননি। ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে প্রশাসনের কর্তাদের সাথে কথা বলেই নির্বাচন করা হয়েছে।

আজ সোমবার ৭ জানুয়ারি দুপুরে কানাইপুর পাট বাজারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন কানাইপুর বাজার বণিক সমিতি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি।

গতকাল রোববার ৬ জানুয়ারি এ বণিক সমিতির এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৭টি পদে ৩৪ জন প্রার্থী ছিলেন। ভোটার ছিলেন ১১৭২ জন। ভোট দিয়েছেন ১০৫১ জন। গণনা শেষে সন্ধা ৭টায় ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

এর আগে ৬ জানুয়ারি তফশিল ঘোষণা হয়। তবে বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি ও কানাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেলায়েত ফকির এ নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ করে নির্বাচন বন্ধে ব্যবস্থা নিতে একটি লিখিত আবেদন করেন জেলা প্রশাসকের দপ্তরে।

এব্যাপারে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান ও কানাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জুলফিকার আলী মিনু বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান বেলায়েত ফকিরের অভিযোগের পর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক এবং সদর ইউএনও এর সাথে আমরা পৃথকভাবে সাক্ষাৎ করি। তারা আমাদেরকে বেলায়েত ফকিরের সাথে বিষয়টি মিটিয়ে ফেলতে বলেন তবে নির্বাচন বন্ধের কোন নির্দেশ দেননি।

তিনি বলেন, নির্বাচন না হলে প্রার্থীরা তাদের দোকানপাট ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে রাস্তায় নেমে যেতো। চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতো বাজারে। এজন্য নির্বাচন করা ছাড়া আমাদের আর কিছু করার ছিলোনা।

জুলফিকার আলী মিনু বলেন, প্রশাসনকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করেই একথা বলছি। তারা আমাদের কর্তা। যদি আমাদের কোন ভুল হয়ে থাকে ক্ষমা করে দিবেন। সংবাদ সম্মলনে উপস্থিত অন্যান্য প্রার্থীরা প্রশ্ন করে বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে নির্বাচন বন্ধে নির্দেশের যে কথা বলা হচ্ছে তা ব্যবসায়ীরা মানতে পারেনি। করোনার মধ্যেই ফরিদপুর ট্রাক ড্রাইভার্স ইউনিয়নের নির্বাচন হয়েছে। জাতীয়ভাবেও ইউপি নির্বাচন হচ্ছে। তাহলে আমাদের নির্বাচন করতে বাধা কোথাও।

তাদের অভিযোগ, গত ১২ বছর যাবত বেলায়েত হোসেন ভোট ছাড়াই পদাধিকারবলে বণিক সমিতির পদ দখল করে ছিলেন। বাজারে নানা সমস্যা হতো। চুরি হতো। উন্নয়ন হতোনা৷ তাই ব্যবসায়ীরা সকলে এক হয়ে নির্বাচন আয়োজনের উদ্যোগ নেয়। এখন নির্বাচন শেষে জেলা প্রশাসনকে ভুল বুঝিয়ে পরিস্থিতি ঘোলা করতে চাইছে।

সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আরেক সদস্য মো. খোকন মাতুব্বর, সদ্য নির্বাচিত সভাপতি মো. লিয়াকত মাতুব্বর, সাধারণ সম্পাদক মো. তুষার খান, সহ-সভাপতি মো. সিরাজ মৃধা খোকন, যুগ্ম সম্পাদক শফিকুল ইসলাম খোকন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. মনির হোসেন শাহীনসহ নির্বাচিত অন্যান্য প্রার্থী ও সাধারণ ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

error: Content is protected !!