1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২, ০৬:২১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
স্কুল ছাত্রীর লাশ তালাবদ্ধ বাথরুম ভেঙে উদ্ধার আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরে চাঁদাবাজি, আটক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী সালথায় যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ফরিদপুর আঞ্চলিক কেন্দ্রের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন জাতির পিতাকে হত্যার পর তার নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল- লাবু চৌধুরী বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন খাদ্যমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদারের শোক বাণী মেয়ের প্রেম লীলায় মা না ফেরার দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় দম্পতির প্রাণ গেল জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সালথার দলীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় করলেন লাবু চৌধুরী

ভাঙ্গার হামিরদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ইউপি সমাজ সেবা কর্মকর্তাসহ নিহত-২

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক

ভাঙ্গা, সংবাদদাতা: ফরিদপুর-মাদারীপুর সড়কের ভাঙ্গা উপজেলার হামিরদি নামক স্থানে মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে।

শুক্রবার ২৮শে জানুয়ারি রাত ৯টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় ফরিদপুর-মাদারীপুর মহাসড়কের হামিরদী নামক স্থানে।

নিহত আনোয়ারের ফরিদপুর জেলা নগরকান্দা উপজেলার বানেশ্বরদী গ্রামের মৃত্যু মুক্তিযোদ্ধা ইউনুচ আলীর ছেলে তিনি ভাঙ্গা সমাজসেবা অধিদপ্তরের ইউনিয়ন কর্মি হিসাবে চাকুরী করেন ও নিহত বন্ধু ভাঙ্গা পৌরসদরের মৃত্যু আঃ রশিদ মির্জার ছেলে ওয়াহিদুজ্জামান বাবু মির্জা।

পারিবারিক ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত আনোয়ার নিজের মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরতে বের হন রাতে। নওপাড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে সঙ্গে নেন তার বন্ধু বাবু মির্জাকে। তারা পুখুরিয়ার দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় ঘটনাস্থলে মহাসড়কে দাড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পিছনের দিক থেকে এসে প্রচন্ড বেগে ধাক্কা খান এরা। তখন ঘটনাস্থলে চালক আনোয়ার নিহত হন। এবং আরোহী বাবু মির্জা গুরুতর আহত হন।

এসময় স্থানীয়রা উদ্ধার করে আহত বাবু মির্জাকে আশংকাজনক অবস্থায় ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। বাবু মির্জার তিন বছরের এক মেয়ে ও ছয় মাসে এক ছেলে রয়েছে। দুই বন্ধুর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

পরিবারের সঙ্গে রাতের খাবার খাবেন বলে খাবার রেডি করতে বলেন আনোয়ার (৪৩) তার স্ত্রীকে। সারাদিন বাসায় ছিলেন একটু ঘুরে এসেই খাবেন বলে রাত ৮টার দিকে বাসা থেকে বের হন। খাবার রেডি করে বসে থাকতে থাকতে খবর আসে আনোয়ার ও তার বন্ধু বাবু মির্জার (৪০) নিহতের ঘটনার। বাড়া ভাত টেবিলেই রইল তবে আনোয়ার ফিরল লাশ হয়ে। মোটরসাইকেল কেড়ে নিল দুই বন্ধুর প্রাণ (চালক ও আরোহী) এমন ভাবে বিলাপ করতে থাকেন স্ত্রী দিলরুবা জাহান।

এ ঘটনায় ভাঙ্গা হাইওয়ে থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ দুই বন্ধুর মৃত্যু নিশ্চিত করে বলেন, লাশ রাতেই পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। ট্রাককে আটক করা হয়েছে, ড্রাইভার হেলপার পালিয়ে গেছে।

এদিকে ভাঙ্গা সমাজসেবা অফিসার আবুল কালাম বলেন, আনোয়ার আমাদের অফিসের ইউনিয়ন কর্মি ও বাবু তার বন্ধু বলে জেনেছি। আনোয়ারের আট মাসের কন্যাসহ তিনজন কন্যা রয়েছে। অফিস সংলগ্ন আজম টাওয়ারে ভাড়া থাকেন আনোয়ার। নিহত আনোয়ারের বড় মেয়ে পাইলট স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে, মেজো মেয়ে নার্সারীতে পড়ে, ছোট মেয়ের বয়স ৮ মাস।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

error: Content is protected !!