1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৫৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
পিতার লাশ বাড়িতে রেখেই অশ্রু জলে বুক ভাসিয়ে পরীক্ষার হলে ছেলে জেলা পরিষদ নির্বাচনে আ.লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ভোট চেয়ে কাঁদলেন ভাঙ্গা উপজেলা সিপিপির বর্ধিত সভা ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত বোয়ালমারীতে জনপ্রতিনিধিদের সাথে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ফরিদপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ  বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের মাননীয় বিচারপতিকে ফরিদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান  সমাজের সবক্ষেত্রেই সুবিচার নিশ্চিত করতে হবে – বিচারপতি মো: রেজাউল হাসান  পরিবেশ উন্নয়ন ফোরামের উদ্যোগে ফরিদপুরে বিশ্ব নদী দিবস পালন উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ভাঙ্গা উপজেলার বাজারে ভোক্তা অধিদপ্তরের বাজার অভিযান

বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের লেক যেন ময়লার ভাগাড়/দুর্ভোগে ব্যবসায়ীরা

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক
রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি-পাংশা সড়কের বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদ গেইটের নিকটে লেক ও সড়কের পাশে প্রতিদিনই ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। ফলে ময়লা-আবর্জনা ভাগারে পরিনত হয়েছে গুরুত্বপুর্ণ সড়কটির।
উপজেলা পরিষদ গেইট এলাকাটি ব্যাটারী চালিত অটোবাইক স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহৃত হলেও কিছুদিন যাবৎ লেকর পাড়ে ময়লা ফেলা হচ্ছে। এ ময়লা-আবর্জনার বজ্যের পঁচা উৎকট দুর্গন্ধে পথচারী, অটাবাইক চালক, যাত্রী, ব্যবসায়ীরা পড়েছে চরম দুর্ভোগে। প্রশাসন একাধিকবার ময়লা-আবর্জনা ফেলার বিষয়ে নিষধাজ্ঞা দিলেও ২-১ দিন বন্ধ রাখাসহ রাতের অন্ধকারে ফেলে চলে যায়।
বালিয়াকান্দি বাজারের ময়লা-আবর্জনা চন্দনা নদীতে ফেলা হলেও বেশ কিছুদিন ধরে উপজলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবন সংলগ্ন উপজেলা পরিষদ গেইটের লেকে ফেলা হচ্ছে। সড়ক এর পাশে হওয়ার কারণে বাজারের অনেক ব্যবসায়ীই সহজেই তার ময়লা ফেলে দিয়ে যান। প্রশাসন এর কঠোর হুশিয়ারীতে বেশ কিছুদিন ময়লা ফেলা বন্ধ থাকে। সম্প্রতি বাজারে ময়লা ফেলার পাত্র প্রদান করায় ব্যবসায়ীরা ওই পাত্র ময়লা ফেল রাখে। বাজারের পরিছনতাকর্মীরা ওই ময়লা ভ্যান গাড়ীতে করে এনে নিয়মিত লেকে ফেলতে শুরু করেছে।  ময়লা ফেলার সঠিক ব্যবস্থাপনা ও নির্দিষ্ট কোন জায়গা না থাকায় সমস্যার কোন সমাধান হচ্ছে না। বরং ময়লা ফেলার কারণে লেকের বিপরীত পার্শ্বের ব্যবসায়ী ও অটোবাইক চালক, যাত্রী ও পথচারীরা পড়ছ চরম বিপাকে। দুর্গন্ধ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।
কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, এখানে বাজারের ময়লা-আবর্জনা লেকে যত্রতত্র ভাবে ফেলানো হচ্ছে। তাদের নিশেধ করলেও কোন কাজ হচ্ছে না। এখন রাতের অন্ধকারে ফেলে রেখে চলে যাচ্ছে। এতে দুর্গন্ধর সৃষ্টি হয়ে ব্যবসা করা দুষ্কর হয়ে দাড়িয়েছে।
কয়েকজন অটো চালক বলেন, আমাদের নির্দিষ্ট কোন স্ট্যান্ড না থাকার কারণে উপজেলা পরিষদ গেইটের নিকটে কিছু জায়গা থাকায় আমরা এখান থেকে যাত্রী পরিবহন করে আসছিলাম। বেশ কিছুদিন ধরে বাজারের ময়লা ফেলায় এখন গাড়ী রাখাত দুরের কথা, দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়ে চলাচল করা দায় হয়ে দাড়িয়েছে।
ময়লা ফেলতে আসা বাজার পরিছনতাকর্মীদের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমাদের বাজারের ইজারাদার ফেলতে বলছে তাই ময়লা ফলছি। নিশেধ করলে আর ফলবো না।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মো হাসিবুল হাসান বলেন, ওই লেকের পাড়ে কোন ময়লা ফেলার অনুমতি নেই। আমি বাজারে ইজারাদারের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

error: Content is protected !!