1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. rjillur86@gmail.com : Jillur Rahman Russell : Jillur Rahman Russell
  3. sklablu6580@gmail.com : Lablu Shek : Lablu Shek
  4. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:০৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
ঈশান ইন্সটিটিউশনে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত আদালত থেকে ফেরার পথে যুবকের উপর সন্ত্রাসী হামলা সালথায় শস‌্য উৎপাদন বিষয়ক সংগ্রশালা শস‌্য-গাথা এর উ‌দ্বোধন সালথা সরকা‌রি ক‌লে‌জে উ‌দ্বোধনী ক্লাস ও নবীন বরণ অনু‌ষ্ঠিত ফরিদপুর পৌরসভার উপানুষ্ঠানিক শিক্ষকদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন ১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের বরেন্দ্র বাজারের পাকা রাস্তার দক্ষিণে মৃত ওয়াসিম উদ্দিনের ছেলে রাব্বানীর বাড়ি থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার সহ তিন জনকে আটক করেছে রাজশাহী RAB (৫) গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চিনিয়াতলা গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে সেতাউর রহমান (৪২) একই উপজেলার আসনপুর গ্রামের মৃত চান মোহাম্মদের ছেলে আব্দুল খালেক (৫৩) ও শেরপুর গ্রামের মৃত আলতাব হোসেনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৬৩) পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা মূর্তি পাচারকারী চক্রের সদস্য। তাঁরা মূর্তিটি পাচারের চেষ্টা করছিলেন। পুলিশ সূত্র জানায়, উদ্ধার হওয়া মূর্তিটির ওজন ১২. ৭ কেজি । এটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসংবলিত কষ্টিপাথরের মূর্তি,যার আনুমানিক মূল্য ১৫ লক্ষ টাকা। উদ্ধার মূর্তিটি প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান বলেন, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় RAB আটক করার পর গ্রেফতারকৃতদের নিয়ামতপুর থানার হস্তান্তর করেন। এ ঘটনায় নিয়ামতপুর থানায় মামলা হয়েছে। এ মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আজকের কণ্ঠ রাইস ট্রান্সপ্লান্টারে ধানের চারা রোপনের মাধ্যমে ধানের সমলয় চাষাবাদের উদ্বোধন ফরিদপুরে আস্থা আইরিশ মৈত্রী হাসপাতালের যাত্রা শুরু হাসিনা-সাত্তার ইসলামিক এতিমখানায় ওয়াজ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ইভটিজিং বিষয়ে কেউ বিন্দু মাত্র অপরাধ করলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না

সালথায় হত্যাসহ ১৮ মামলা মাথায় নিয়ে ঘুমাতেন জঙ্গলে: অবশেষে পুলিশের জালে ধরা! হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দী

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৫ মে, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক

নুরুল ইসলাম, বিশেষ প্রতিনিধি: ফরিদপুরের সালথায় হত্যাসহ ১৮ মামলা মাথায় নিয়ে ঘুমাতেন জঙ্গলে। অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়ে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন চল্লিশ বছর বয়সী মো. বাবলু ফকির। হত্যাসহ মোট দেড় ডজন মামলার আসামি তিনি। এরমধ্যে বিজ্ঞ আদালত তার বিরুদ্ধে ৩টি মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। এসব মামলা আর পরোয়ানা মাথায় নিয়েই তিনি দিনের বেলায় প্রকাশ্যে দিতেন সংঘর্ষসহ নানা অপকর্মের নেতৃত্ব আর রাতে ঘুমিয়ে থাকতেন গভীর জঙ্গলে। অবশেষে শেষ রক্ষা হল না তার। পুলিশের জালে ধরাই পড়লেন তিনি।

একাধিক মামলার আলোচিত আসামি বাবলু ফকির ফরিদপুরের সালথা উপজেলার যদুনন্দী ইউনিয়নের সংঘর্ষ প্রবণ এলাকা হিসেবে পরিচিত বড় খারদিয়া গ্রামের মৃত মোজাম ফকিরের ছেলে। মঙ্গলবার রাতে খারদিয়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন সালথা থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শেখ সাদিক বলেন- গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার গভীর রাতে খারদিয়া ছয়আনিতে অবস্থিত একটি গভীর জঙ্গলে অভিযান চালিয়ে বাবলু ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে গত ৫ মে খারদিয়া গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত সিরাজুল হত্যা, সালথা উপজেলা পরিষদ ও থানা ভাঙচুর, দ্রুত বিচার আইন, পুলিশ বাদীসহ বিভিন্ন অপরাধের ১৮টি মামলা রয়েছে। এসব মামলা বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন। তারমধ্যে তিনটি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করেছেন বিজ্ঞ আদালত। এরমধ্যে সিরাজুল হত্যার দায় স্বীকার করে আজ বুধবার (২৫ মে) বিজ্ঞ আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন বাবলু।

খারদিয়া গ্রামের একাধিক বাসিন্দা বলেন- একাধিক মামলার আসামি থাকার পরেও বাবলু ফকির গ্রামে থেকে প্রকাশ্যে নানা ধরণের অপকর্মের সাথে জড়িত ছিলেন। এলাকায় টুকটাক ঝামেলা হলে তিনি তাতে ইন্ধন দিয়ে বড় ধরণের সংঘর্ষ সৃষ্টি করে সবার আগে থেকে নেতৃত্ব দিতেন। সংঘর্ষ শেষে লোকজন নিয়ে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর-লুটপাট করতেন।

তারা আরও বলেন- শুধু নিজের গ্রাম নয়, পাশের বোয়ালমারীর পরমেশর্দী গ্রামে গিয়েও সংঘর্ষ সৃষ্টি করে বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করতেন বাবলু। তার মূল পেশাই ছিল প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে উপার্জন করা। তবে পুলিশের ভয়ে রাতে তিনি বাড়িতে থাকতেন না। কাঁথা-বালিস ও মশারি নিয়ে কখনো পাট ক্ষেত আবার কখনো জঙ্গলে গিয়ে ঘুমাতেন। অবশেষে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করায় গ্রামে হয়তো শান্তি ফিরে আসবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের বরেন্দ্র বাজারের পাকা রাস্তার দক্ষিণে মৃত ওয়াসিম উদ্দিনের ছেলে রাব্বানীর বাড়ি থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার সহ তিন জনকে আটক করেছে রাজশাহী RAB (৫) গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চিনিয়াতলা গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে সেতাউর রহমান (৪২) একই উপজেলার আসনপুর গ্রামের মৃত চান মোহাম্মদের ছেলে আব্দুল খালেক (৫৩) ও শেরপুর গ্রামের মৃত আলতাব হোসেনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৬৩) পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা মূর্তি পাচারকারী চক্রের সদস্য। তাঁরা মূর্তিটি পাচারের চেষ্টা করছিলেন। পুলিশ সূত্র জানায়, উদ্ধার হওয়া মূর্তিটির ওজন ১২. ৭ কেজি । এটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসংবলিত কষ্টিপাথরের মূর্তি,যার আনুমানিক মূল্য ১৫ লক্ষ টাকা। উদ্ধার মূর্তিটি প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান বলেন, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় RAB আটক করার পর গ্রেফতারকৃতদের নিয়ামতপুর থানার হস্তান্তর করেন। এ ঘটনায় নিয়ামতপুর থানায় মামলা হয়েছে। এ মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আজকের কণ্ঠ

১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের বরেন্দ্র বাজারের পাকা রাস্তার দক্ষিণে মৃত ওয়াসিম উদ্দিনের ছেলে রাব্বানীর বাড়ি থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ১৫ লক্ষ টাকার কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার সহ তিন জনকে আটক করেছে রাজশাহী RAB (৫) গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চিনিয়াতলা গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে সেতাউর রহমান (৪২) একই উপজেলার আসনপুর গ্রামের মৃত চান মোহাম্মদের ছেলে আব্দুল খালেক (৫৩) ও শেরপুর গ্রামের মৃত আলতাব হোসেনের ছেলে নজরুল ইসলাম (৬৩) পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা মূর্তি পাচারকারী চক্রের সদস্য। তাঁরা মূর্তিটি পাচারের চেষ্টা করছিলেন। পুলিশ সূত্র জানায়, উদ্ধার হওয়া মূর্তিটির ওজন ১২. ৭ কেজি । এটি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসংবলিত কষ্টিপাথরের মূর্তি,যার আনুমানিক মূল্য ১৫ লক্ষ টাকা। উদ্ধার মূর্তিটি প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান বলেন, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় RAB আটক করার পর গ্রেফতারকৃতদের নিয়ামতপুর থানার হস্তান্তর করেন। এ ঘটনায় নিয়ামতপুর থানায় মামলা হয়েছে। এ মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আজকের কণ্ঠ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট
error: Content is protected !!