1. news.ajkerkontho@gmail.com : Ajker Kontho : Ajker Kontho
  2. rjillur86@gmail.com : Jillur Rahman Russell : Jillur Rahman Russell
  3. sklablu6580@gmail.com : Lablu Shek : Lablu Shek
  4. multicare.net@gmail.com : আজকের কন্ঠ :
শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
শাহানা ফাউন্ডেশন মাদ্রাসা ছাত্রদের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ  বহুরূপী হাবিবুর রহমান হারুন এর ফাঁদে মানু ফরিদপুর প্রকাশ্যে ফিল্মি স্টাইলে প্রবাসীর উপর সন্ত্রাসী হামলা চরভদ্রাসনে জমি জবর দখলের অভিযোগ! আনোয়ারা-মান্নান বেগ ফাউন্ডেশন কর্তৃক শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পুরুষ্কার বিতরনের মাধ্যমে সমাপ্ত ইয়াং টাইগার্স অনূর্ধ্ব ১৬ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে ঢাকা জেলা দল চ্যাম্পিয়ন ফরিদপুর গ্রাম আদালতের বিচারিক কাজের মাধ্যমে সকল বিষয়ে সহজ মিমাংসা দিচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গরিব ও অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ ফরিদপুর সদরে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার শিক্ষকদের বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ শুরু নগরকান্দায় বিনামূল্যে ২ শতাধিক শিক্ষার্থীর রক্তের গ্রুপ নির্ণয়

ট্রলি ও ট্রাকে মাটি নেওয়ায় সড়কে দূর্ঘটনার কবলে বিভিন্ন যানবাহন, এর দায় নেবে কে?

Rabiul Hasan Rajib
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২২
সত্য প্রকাশে নির্ভীক

খন্দকার আব্দুল্লাহঃ ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার বিভিন্ন স্থানের ফসলি জমি ও জমির শ্রেণী পরিবর্তন না করে সড়ক ও গ্রামীণ রাস্তায় ট্রলি দিয়ে মাটি যাচ্ছে ইটভাটাসহ বিভিন্ন নিচু যায়গা ভরাটের জন্য। এতে করে যেমন সরকারি রাস্তা বিনষ্ট হচ্ছে তেমনি এলাকার মানুষসহ সমস্যা হচ্ছে পথচারীদের।

ঘোষপুর ইউনিয়নের খামারপাড়া গ্রামের রাজা মিয়া কাটছেন চার একর জমির একটি দিঘি। পুরান পুকুর সংস্করণসহ যোগ দিয়েছেন ভিটে কাটার উৎসবে। চার একর দিঘির মাটি যাচ্ছে এলাকার বিভিন্ন লোকের নীচু জমি ভরাটের জন্য। গাড়ি প্রতি স্থান ভেদে ১ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ২ হাজার টাকাও নিচ্ছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে খামারপাড়া ও রতনদিয়া গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এই মাটি বিক্রির সাথে সাবেক চেয়ারম্যানের ভাই জড়িত আছে। তিনি এগুলো কন্টোল করেন ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারিনা। ট্রলির দাপটে আমরা বাড়িতে থাকতে পানিনা। ধুলাবালিতে খাবার নষ্ট হয়ে যায়। আবার বিদ্যুৎ থাকেনা যে জানালা বন্ধ করে রাখব। আমরা খুব কষ্টের মধ্যে আছি। আপনাদের লেখালেখির মধ্যে দিয়ে দেখেন এই মৃত্যু দানব ট্রলি বন্ধ করা যায় কিনা।

এ ব্যাপারে দিঘির মালিক রাজা মিয়াকে মুঠোফোনে যোগাযোগের জন্য তার নাম্বারে কল দিলে রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ঘোষপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমরান হোসেন নবাব বলেন, আমি মাটি কাটা দেখছি আপনি এসে ইউএনওর মতো ভেকু পুড়ায় দিয়ে যান।

এদিকে মাইজকান্দি-ভাটিয়াপাড়া আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশ দিয়ে গড়ে ওঠা ইটের ভাটায় মাটি নেওয়ার জন্য ভাটাগুলোর কাছে মহাসড়ক এখন মহা কাঁচা রাস্তায় পরিণত হয়েছে। জয়নগর বটতলা, সৈয়দপুর, ভাটপাড়া ও সাইনবোর্ড এলাকার সড়ক দিয়ে ধুলাবালির কারণে এখন যাতায়াত করা একেবারেই দুর্বিষহ। বৃষ্টি হলে কাঁদার জন্য চলাচল করার অনুপযোগী হয়ে যাবে বলে অনেক পথচারী মন্তব্য করেন। অনিচ্ছায় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে যেটা মৃত্যু পর্যন্ত গড়াতে পারে।

শেখর গ্রামের ব্যবসায়ী হাফিজুর বলেন, সাইনবোর্ড দিয়ে ধুলাবালির জন্য যাতায়াত অনেকটা ঝুকিপূর্ণ। চোখ বন্ধ করে যেতে হয় কিছু দেখা যায় না। প্রশাসন এগুলো দেখেও না দেখার ভ্যান করে থাকে।

এ বিষয়ে বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম বলেন, আমি অন্যায়ের বিরুদ্ধে, ন্যায়ের পক্ষে সব সময় আছি এসবের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট
error: Content is protected !!